আজ ৩০শে কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ই নভেম্বর ২০১৯ ইং

ছবি: উইন্ডি

দুর্বল হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ‘বুলবুল’

অনলাইন ডেস্কঃ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তাণ্ডব চালিয়ে দুর্বল হয়ে বাংলাদেশে পুরোপুরি প্রবেশ করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। বর্তমানে ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ৫ থেকে ৮ কিলোমিটার গতিতে এগোচ্ছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এর আগে আবহাওয়া অধিদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছিল, রবিবার মধ্যরাত আনুমানিক ৩টা থেকে ৪টা কিংবা ভোরের দিকে বাংলাদেশ অতিক্রম করবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। এ সময় ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দমকা হাওয়াসহ মাঝারি থেকে ভারী কিংবা অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া এর প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫ থেকে ৭ ফুট বেশি উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসের সম্ভাবনাও রয়েছে।

এদিকে সুন্দরবনের কারণেই ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান। তবে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের বন্দর ও এলাকাগুলোতে দেখানো বিপদ সংকেতগুলো অপরিবর্তিত রয়েছে। সে অনুযায়ী মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। এছাড়াও কক্সবাজারকে ৪ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে আরও জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দমকা হাওয়াসহ মাঝারি থেকে ভারী কিংবা অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে রবিবার বিকেল থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করবে যা সোমবার পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে আঘাত হেনে কিছুটা দুর্বল হয়ে বাংলাদেশের সুন্দরবন উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার গতিতে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দুবলার চরে প্রথম আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড়টি। বর্তমানে এটি কিছুটা দুর্বল হয়ে অতি প্রবল থেকে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। তবে এর ফলে কোনো জলোচ্ছ্বাস হয়নি। স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে দুই থেকে আড়াই ফুট পানির উচ্চতা বেড়েছে।

এদিকে রাত ১১টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আয়েশা খাতুন বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে বঙ্গোপসাগরের পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের দক্ষিণপশ্চিম এলাকায় অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়বে। মধ্যরাত নাগাদ সুন্দরবনের নিকট দিয়ে উপকূল অতিক্রম করবে।’

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, ঘূর্ণিঝড়টির প্রায় ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। বর্তমানে এটি ঘণ্টায় ৯০ থেকে ১১০ কিলোমিটার বাতাসের গতি নিয়ে ধেয়ে আসছে। এর আগে শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ঘণ্টায় ১১৫ কিলোমিটার থেকে ১২৫ কিলোমিটার বাতাসের গতি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের সাগর দ্বীপ উপকূলে আঘাত হানে এই ঘূর্ণিঝড়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর


Your IP: 34.231.21.123

%d bloggers like this: