আজ ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

খোশ আমদেদ মাহে রমজান

খোশ আমদেদ মাহে রমজান। আরবী শাবান মাস বিদায় নিয়ে মুসলিম ধনী-গরিব, ছোট-বড় সবার ঘরে ঘরে রমজান উপস্থিত হয়েছে।

আত্মশুদ্ধি, আত্মউন্নয়ন আর তাকওয়া অর্জনের রমজান মাসের প্রথম দিন। অফুরন্ত রহমত,বরকত, মাগফিরাত, নাজাত ও ফজিলতপূর্ণ এই মাসেই নাযিল হয়েছে আল কুরআন। ফলে আল কুরআনের মর্যাদার বদৌলতে এই মাসের মর্যাদাও অন্যান্য মাসের তুলনায় অনেক বেশি। রমজান শুরু উপলক্ষে সব ক্ষেত্রেই ইসলামী ভাবধারায় শুরু হয়েছে আমাদের জীবনাচার। পরিবর্তন এসেছে দৈনিক কাজের রুটিনেও।

বছর ঘুরে রহমত, বরকত ও মাগফিরাতের নতুন সওগাত নিয়ে সারাবিশ্বের মুসলমানের দ্বারে আবার এলো পবিত্র মাহে রমজান।

 

আরবী মাস শুরু হওয়ায় সউদীআরব সহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলোতে চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে একদিন আগেই রমজান শুরু হয়েছে।

সপ্তাহের অন্য ৬ দিনের চেয়ে বিশ্বের মুসলমানদের জন্য পবিত্র জুম্মাবারের মর্যাদা অন্যরকম। পবিত্র মাহে রমজান মাসের প্রথম রোজা সেই পবিত্র জুম্মাবারেই বাংলাদেশে শুরু হল।

বিশ্বনবী রাসুল (সা.) পবিত্র রমজান মাসের গুরুত্ব সম্পর্কে হাদিসে বলেছেন, ‘এ মাসে বেহেশতের দরজাগুলো উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়, জাহান্নামের দরজাগুলো তালাবদ্ধ থাকে আর শয়তানকে (তার সহচরদেরসহ) শৃঙ্খলাবদ্ধ করে রাখা হয়। (বুখারি ও মুসলিম)।

 

আর তাই পবিত্র রমজান মাস শুরু হয়েছে সাম্য, সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি, ত্যাগ, সংযম এবং আত্মশুদ্ধির মধ্য দিয়ে।

সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন তাঁর ইবাদত-বন্দেগী করার জন্যই একমাত্র মানুষ জাতিকে সৃষ্টি করেছেন।

পবিত্র রমজান মাস খুবই তাৎপর্যপূর্ণ আর নেয়ামতের। পবিত্র রমজান মাসেই মহান আল্লাহ তায়ালা নাজিল করেছেন মহাগ্রন্থ পবিত্র আল-কোরআন। মুমিন-মুসলমানের জন্য ইসলাম ধর্মের ৫ স্তম্ভের মধ্যে অন্যতম সিয়াম সাধনা তথা রোজা ফরজ করেছেন।

মহান আল্লাহ তায়ালা নিজেই পবিত্র কোরআন শরীফে ঘোষণা করেছেন, ‘রমজান মাস, এতে মানুষের পথপ্রদর্শক ও সৎপথের স্পষ্ট নিদর্শন এবং ন্যায় ও অন্যায়ের মীমাংসারূপে কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে। অতএব, তোমাদের মধ্যে যে এ মাস পাবে সে যেন এ মাসে অবশ্যই রোজা রাখে’ (সূরা বাকারা, আয়াত ১৮৩)।

পবিত্র মাহে রমজানে দুনিয়ায় মুমিনদের-মুসলমানদের জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুুষ্টি অর্জনে আমল করা যায় প্রতিটি ক্ষণ, প্রতিটি দিন, প্রতিটি রাত।

তাই আসুন, নেয়ামতের আর তাৎপর্যপূর্ণ পবিত্র রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষায় এক-অপরকে সহযোগীতা আর অকল্যাণ বর্জন করি। সাম্য, সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি, ত্যাগ, সংযম, ইবাদত এবং আত্মশুদ্ধির মধ্য দিয়ে জীবনের সকল স্তরে ধৈর্য ও সংযম প্রদর্শন করি। সন্তুুষ্টি অর্জনের চেষ্টা করি পরম করুণাময় মহান আল্লাহ তায়ালার।

জনপ্রিয় অনলাাইন “দৈনিক দেশকন্ঠ” পত্রিকার পরিবারের পক্ষ থেকে পত্রিকাটির সম্মানীত পাঠকবৃন্দ, বিজ্ঞাপন দাতা, শুভানুধ্যায়ী, সকল লেখক-সাংবাদিক-কলামিষ্ট এবং গণমাধ্যমকর্মী সহ দেশবাসীকে জানাই পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা।

 

খোকন হাওলাদার

সম্পাদক ও প্রকাশক
দৈনিক দেশকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
%d bloggers like this: